৯ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার,সকাল ১১:২৪

Kolahol News

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ | কোন ধারায় কি শাস্তি

প্রকাশিত: মে ৯, ২০২০

  • শেয়ার করুন
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন

কোলাহল নিউজ::

বর্তমান সমাজে অপরাধ শুধু বেড়েই চলছে। ডিজিটাল ডিভাইসের মাধ্যমে অপরাধের একটি নতুন মাধ্যম যুক্ত হয়েছে। কিন্তু আইন থাকা সত্ত্বেও আমরা আইনের সাহায্য নিতে নারাজ। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ তে এসকল অপরাধে শাস্তি সম্পর্কে বিস্তারিত দেওয়া আছে। তার কিছু নমুনা নিন্মে বিস্তারিত।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ১৭:(১) যদি কোন ব্যক্তি ইচ্ছাকৃতভাবে এবং জেনেশুনে এমন কোন (ক)তথ্যে অনৈতিক ভাবে প্রবেশ করে এবং (খ)সেটি ক্ষতিগ্রস্থ এবং নষ্ট করার চেষ্টা করে তাহলে সেটি অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি (ক)অপরাধ ঘটায় অনধিক ৭ বছরের কারাদন্ড বা অনধিক পচিশ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে। উক্ত ব্যাক্তি যদি (খ)অপরাধ ঘটায় অনধিক ১৪ বছরের কারাদন্ড বা অনধিক এক কোটি টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড বা অনধিক পাঁচ কোটি টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ১৮:(১) যদি কোন ব্যক্তি ইচ্ছাকৃতভাবে এবং এমন কোন (ক)কম্পিউটার অথবা ডিজিটাল ডিভাইসে অনৈতিক ভাবে প্রবেশ করে বা প্রবেশে সাহায্য করে এবং (খ)প্রবেশের উদ্দেশ্য কেবল অপরাধ ঘটান হয়ে থাকে তাহলে সেটি অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি (ক)অপরাধ ঘটায় অনধিক ৬ মাস কারাদন্ড বা অনধিক তিন লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে। উক্ত ব্যাক্তি যদি (খ)অপরাধ ঘটায় অনধিক তিন বছরের কারাদন্ড বা অনধিক দশ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় অনধিক তিন বছর কারাদন্ড বা অনধিক দশ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৪) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বারের বেশি একই অপরাধ ঘটায় অনধিক দ্বিগুন শাস্তিতে দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ ধারা ১৯:(১) যদি কোন ব্যক্তি কোন কম্পিউটার বা কম্পিউটার সিস্টেমে অনৈতিক ভাবে কোন ডাটা সংগ্রহ বা পর্বিবর্তন বা ক্ষতিগ্রস্থ বা ভাইরাসের অনুপ্রবেশ বা অন্য কেউ যাতে সেই ডাটা সংগ্রহ বা প্রবেশ করতে না পারে করে থাকে তাহলে তা অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি অপরাধ ঘটায় অনধিক ৭ বছর কারাদন্ড বা অনধিক দশ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় অনধিক দশ বছর কারাদন্ড বা অনধিক পঁচিশ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ২০:(১) যদি কোন ব্যক্তি ইচ্ছাকৃত ভাবে এবং জেনেশুনে কোন কম্পিউটারে উৎসে ক্ষতিগ্রস্থ বা লুকানোর জন্য প্রবেশ করে তাহলে উক্ত প্রবেশটি অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি অপরাধ ঘটায় অনধিক তিন বছর কারাদন্ড বা অনধিক তিন লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় অনধিক পাঁচ বছর কারাদন্ড বা অনধিক পাঁচ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ২১:(১) যদি কোন ব্যক্তি কোন ডিজিটাল মাধ্যমে জাতির পিতা বা মুক্তিযুদ্ধ বা জাতীয় সঙ্গীত বা জাতীয় পতাকাকে অবমাননা করে কিছু প্রকাশ করে তাহলে তা অপরাধ বলে গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি অপরাধ ঘটায় অনধিক দশ বছর কারাদন্ড বা অনধিক এক কোটি টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড বা অনধিক তিন কোটি টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ২২:(১) যদি কোন ব্যক্তি কোন কম্পিউটার বা কম্পিউটার সিস্টেমে অনৈতিক ভাবে কারো অথোরিটি ছাড়া প্রবেশ বকরে থাকে তাহলে তা অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি অপরাধ ঘটায় অনধিক ৫ বছর কারাদন্ড বা অনধিক ৫ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় অনধিক ৭ বছর কারাদন্ড বা অনধিক ১০ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ২৩:(১)যদি কোন ব্যক্তি ডিজিটাল ডিজিটালর মাধ্যমে ধোঁকা দেওয়ার চেষ্টা করে তাহলে সেটি অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি অপরাধ ঘটায় অনধিক ৫ বছর কারাদন্ড বা অনধিক ৫ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় অনধিক ৭ বছর কারাদন্ড বা অনধিক দশ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ২৪:(১) যদি কোন ব্যক্তি ডিজিটাল ডিজিটালর মাধ্যমে নিজের বাক্তিত গোপন রেখে ধোঁকা দেওয়ার চেষ্টা করে তাহলে সেটি অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি অপরাধ ঘটায় অনধিক ৫ বছর কারাদন্ড বা অনধিক ৫ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় অনধিক ৭ বছর কারাদন্ড বা অনধিক দশ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ২৫:(১) যদি কোন ব্যক্তি ইচ্ছাকৃতভাবে এবং এমন কোন (ক)কম্পিউটার অথবা ডিজিটাল ডিভাইসের মাধ্যমে ছবি আদান-প্রদান করে এবং (খ)বা প্রকাশ করে থাকে তাহলে সেটি অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি অপরাধ ঘটায় অনধিক তিন বছরের কারাদন্ড বা অনধিক তিন লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় অনধিক পাঁচ বছর কারাদন্ড বা অনধিক ১০ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় অনধিক ৫ বছর কারাদন্ড বা অনধিক দশ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ২৬:(১) যদি কোন ব্যক্তি ইচ্ছাকৃতভাবে এবং এমন কোন (ক)কম্পিউটার অথবা ডিজিটাল ডিভাইসের মাধ্যমে ছবি অথোরিটি ছাড়া সংগ্রহ করে থাকে তাহলে সেটি অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি অপরাধ ঘটায় অনধিক ৫ বছরের কারাদন্ড বা অনধিক ৫ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় অনধিক ৭ বছর কারাদন্ড বা অনধিক দশ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ২৭:(১) যদি কোন ব্যক্তি ডিজিটাল মাধ্যমে এমন কিছু প্রকাশ করে যা সাইবার সন্ত্রাসবাদ প্রকাশ হয় তাহলে সেটি অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি অপরাধ ঘটায় অনধিক ১৪ বছরের কারাদন্ড বা অনধিক এক কোটি টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড বা অনধিক পাঁচ কোটি টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ২৫:(১) যদি কোন ব্যক্তি ইচ্ছাকৃতভাবে কম্পিউটার অথবা ডিজিটাল ডিভাইসের মাধ্যমে ধর্মকে আঘাত করা স্বরুপ কিছু প্রকাশ করে থাকে তাহলে সেটি অপরাধ বলিয়া গণ্য হবে।

(২) উক্ত ব্যাক্তি যদি অপরাধ ঘটায় অনধিক ৭ বছরের কারাদন্ড বা অনধিক ১০ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় অনধিক ১০ বছর কারাদন্ড বা অনধিক ২০ লক্ষ টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

· যদি কেউ ধারা ৪৯৯ দণ্ডবিধি আইন ১৮৬০ অনুযায়ী কারো মানহাননি করে(ডিজিটাল ডিভাইসের মাধ্যমে)তাহলে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন ২০১৮,ধারা ২৯(১) অনুযায়ী অনধিক ৩ বছর দণ্ডে দন্ডিত হবে অথবা অনধিক পাঁচ লক্ষ টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দন্ডিত হবে। ধারা ২৯(২) অনুযায়ী কোন ব্যক্তি দ্বিতীয়বার একই অপরাধ করে ওই ব্যক্তি অনধিক ৫ বছর দণ্ডে দন্ডিত হবে অথবা অনধিক দশ লক্ষ টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দন্ডিত হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ – ধারা ৩৪:(১) যদি কোন ব্যক্তি হ্যাকিং করে থাকে তাহলে উক্ত ব্যাক্তি অনধিক ১৪ বছরের কারাদন্ড বা অনধিক ১ কোটি টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

(৩) উক্ত ব্যাক্তি যদি দ্বি্তীয়বার একই অপরাধ ঘটায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড বা অনধিক ৫ কোটি টাকার জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে। অতএব নিজে সতর্ক হই এবং অন্যকে সতর্ক করি। সাইবার অপরাধ থেকে দূরে থাকি।

  • শেয়ার করুন
বাংলাদেশে সকল নিউজ সবার আগে পেতে পেজটিতে লাইক দিন-